Al-Mutaffife( المطففين)
Original,King Fahad Quran Complex(الأصلي,مجمع الملك فهد القرآن)
show/hide
Muhiuddin Khan(মুহিউদ্দীন খান)
show/hide
بِسمِ اللَّهِ الرَّحمٰنِ الرَّحيمِ وَيلٌ لِلمُطَفِّفينَ(1)
যারা মাপে কম করে, তাদের জন্যে দুর্ভোগ,(1)
الَّذينَ إِذَا اكتالوا عَلَى النّاسِ يَستَوفونَ(2)
যারা লোকের কাছ থেকে যখন মেপে নেয়, তখন পূর্ণ মাত্রায় নেয়(2)
وَإِذا كالوهُم أَو وَزَنوهُم يُخسِرونَ(3)
এবং যখন লোকদেরকে মেপে দেয় কিংবা ওজন করে দেয়, তখন কম করে দেয়।(3)
أَلا يَظُنُّ أُولٰئِكَ أَنَّهُم مَبعوثونَ(4)
তারা কি চিন্তা করে না যে, তারা পুনরুত্থিত হবে।(4)
لِيَومٍ عَظيمٍ(5)
সেই মহাদিবসে,(5)
يَومَ يَقومُ النّاسُ لِرَبِّ العٰلَمينَ(6)
যেদিন মানুষ দাঁড়াবে বিশ্ব পালনকর্তার সামনে।(6)
كَلّا إِنَّ كِتٰبَ الفُجّارِ لَفى سِجّينٍ(7)
এটা কিছুতেই উচিত নয়, নিশ্চয় পাপাচারীদের আমলনামা সিজ্জীনে আছে।(7)
وَما أَدرىٰكَ ما سِجّينٌ(8)
আপনি জানেন, সিজ্জীন কি?(8)
كِتٰبٌ مَرقومٌ(9)
এটা লিপিবদ্ধ খাতা।(9)
وَيلٌ يَومَئِذٍ لِلمُكَذِّبينَ(10)
সেদিন দুর্ভোগ মিথ্যারোপকারীদের,(10)
الَّذينَ يُكَذِّبونَ بِيَومِ الدّينِ(11)
যারা প্রতিফল দিবসকে মিথ্যারোপ করে।(11)
وَما يُكَذِّبُ بِهِ إِلّا كُلُّ مُعتَدٍ أَثيمٍ(12)
প্রত্যেক সীমালংঘনকারী পাপিষ্ঠই কেবল একে মিথ্যারোপ করে।(12)
إِذا تُتلىٰ عَلَيهِ ءايٰتُنا قالَ أَسٰطيرُ الأَوَّلينَ(13)
তার কাছে আমার আয়াতসমূহ পাঠ করা হলে সে বলে, পুরাকালের উপকথা।(13)
كَلّا ۖ بَل ۜ رانَ عَلىٰ قُلوبِهِم ما كانوا يَكسِبونَ(14)
কখনও না, বরং তারা যা করে, তাই তাদের হৃদয় মরিচা ধরিয়ে দিয়েছে।(14)
كَلّا إِنَّهُم عَن رَبِّهِم يَومَئِذٍ لَمَحجوبونَ(15)
কখনও না, তারা সেদিন তাদের পালনকর্তার থেকে পর্দার অন্তরালে থাকবে।(15)
ثُمَّ إِنَّهُم لَصالُوا الجَحيمِ(16)
অতঃপর তারা জাহান্নামে প্রবেশ করবে।(16)
ثُمَّ يُقالُ هٰذَا الَّذى كُنتُم بِهِ تُكَذِّبونَ(17)
এরপর বলা হবে, একেই তো তোমরা মিথ্যারোপ করতে।(17)
كَلّا إِنَّ كِتٰبَ الأَبرارِ لَفى عِلِّيّينَ(18)
কখনও না, নিশ্চয় সৎলোকদের আমলনামা আছে ইল্লিয়্যীনে।(18)
وَما أَدرىٰكَ ما عِلِّيّونَ(19)
আপনি জানেন ইল্লিয়্যীন কি?(19)
كِتٰبٌ مَرقومٌ(20)
এটা লিপিবদ্ধ খাতা।(20)
يَشهَدُهُ المُقَرَّبونَ(21)
আল্লাহর নৈকট্যপ্রাপ্ত ফেরেশতাগণ একে প্রত্যক্ষ করে।(21)
إِنَّ الأَبرارَ لَفى نَعيمٍ(22)
নিশ্চয় সৎলোকগণ থাকবে পরম আরামে,(22)
عَلَى الأَرائِكِ يَنظُرونَ(23)
সিংহাসনে বসে অবলোকন করবে।(23)
تَعرِفُ فى وُجوهِهِم نَضرَةَ النَّعيمِ(24)
আপনি তাদের মুখমন্ডলে স্বাচ্ছন্দ্যের সজীবতা দেখতে পাবেন।(24)
يُسقَونَ مِن رَحيقٍ مَختومٍ(25)
তাদেরকে মোহর করা বিশুদ্ধ পানীয় পান করানো হবে।(25)
خِتٰمُهُ مِسكٌ ۚ وَفى ذٰلِكَ فَليَتَنافَسِ المُتَنٰفِسونَ(26)
তার মোহর হবে কস্তুরী। এ বিষয়ে প্রতিযোগীদের প্রতিযোগিতা করা উচিত।(26)
وَمِزاجُهُ مِن تَسنيمٍ(27)
তার মিশ্রণ হবে তসনীমের পানি।(27)
عَينًا يَشرَبُ بِهَا المُقَرَّبونَ(28)
এটা একটা ঝরণা, যার পানি পান করবে নৈকট্যশীলগণ।(28)
إِنَّ الَّذينَ أَجرَموا كانوا مِنَ الَّذينَ ءامَنوا يَضحَكونَ(29)
যারা অপরাধী, তারা বিশ্বাসীদেরকে উপহাস করত।(29)
وَإِذا مَرّوا بِهِم يَتَغامَزونَ(30)
এবং তারা যখন তাদের কাছ দিয়ে গমন করত তখন পরস্পরে চোখ টিপে ইশারা করত।(30)
وَإِذَا انقَلَبوا إِلىٰ أَهلِهِمُ انقَلَبوا فَكِهينَ(31)
তারা যখন তাদের পরিবার-পরিজনের কাছে ফিরত, তখনও হাসাহাসি করে ফিরত।(31)
وَإِذا رَأَوهُم قالوا إِنَّ هٰؤُلاءِ لَضالّونَ(32)
আর যখন তারা বিশ্বাসীদেরকে দেখত, তখন বলত, নিশ্চয় এরা বিভ্রান্ত।(32)
وَما أُرسِلوا عَلَيهِم حٰفِظينَ(33)
অথচ তারা বিশ্বাসীদের তত্ত্বাবধায়করূপে প্রেরিত হয়নি।(33)
فَاليَومَ الَّذينَ ءامَنوا مِنَ الكُفّارِ يَضحَكونَ(34)
আজ যারা বিশ্বাসী, তারা কাফেরদেরকে উপহাস করছে।(34)
عَلَى الأَرائِكِ يَنظُرونَ(35)
সিংহাসনে বসে, তাদেরকে অবলোকন করছে,(35)
هَل ثُوِّبَ الكُفّارُ ما كانوا يَفعَلونَ(36)
কাফেররা যা করত, তার প্রতিফল পেয়েছে তো?(36)